রুবেল-মোস্তাফিজদের বোলিং কোচ হচ্ছেন গিবসন!

নিজ দেশ দক্ষিণ আফ্রিকার ডাকে বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচের চাকরি ছেড়ে চলে গিয়েছেন চার্লস ল্যাঙ্গাভেল্ট। তারপর থেকেই এই পদটি ফাঁকা রয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি) ফাঁকা পদটি পূরণ করতে যোগ্য প্রার্থী খুঁজে বেড়াচ্ছেন। ইতিমধ্যে এই পদের জন্য আগ্রহ দেখিয়েছেন ক্যারিবিয়ান ওটিস গিবসন। বঙ্গবন্ধু বিপিএলে তিনি আবার কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের কোচের দায়িত্ব পালন করছেন।

সোমবার (৬ জানুয়ারি) মিরপুরে অনুশীলনের পর গিবসন জানিয়েছেন, পেস বোলিং কোচের পদ নিয়ে তার সঙ্গে বিসিবির কথাবার্তা চলছেন,‘হ্যাঁ, আলোচনা চলছে। আলাপ-আলোচনা চলছে এটা আমি অস্বীকার করব না। এটার আরো লম্বা প্রক্রিয়া আছে, তবে আলোচনা তো চলছেই।’ আলোচনা সার্থকভাবে এগোলে গিবসনের কাঁধেই পড়বে মোস্তাফিজ-রুবেলদের দেখভালের দায়িত্ব।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খুব একটা সফল না হলেও গিবসনের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট বেশ সমৃদ্ধ। ইংলিশ কাউন্টি ক্লাব গ্ল্যামারগন ও লিস্টারশায়ারের মতো ক্লাবে খেলেছেন। সাড়ে ছয়শ’র বেশি উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন। কোচিং ক্যারিয়ারও সমৃদ্ধ করে ফেলেছেন। ২০০৭-এ পেস বোলিং কোচ হিসাবে কাজ করেছেন ইংল্যান্ড দলের সঙ্গে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রধান কোচ হিসাবেও দায়িত্ব সামলেছেন। সবশেষ গিবসন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রধান কোচ ছিলেন। বিশ্বকাপ ব্যর্থতার জেরে তাঁর চাকরি চলে যায়।

বাংলাদেশের বোলিং কোচের দায়িত্ব নিতে তর সইছে না গিবসনের,‘ অবশ্যই আমি আগ্রহী। আমি ক্রিকেট ভালোবাসি, বোলিং কোচিং করাতে চাই। যদি তরুণ পেসারদের সাহায্য করার সুযোগ পাই আমি লুফে নেব।’

এরমাঝেই বেশ কয়েকজনের সঙ্গে সুসম্পর্ক হয়ে গেছে গিবসনের। তিনি বলছেন,‘ ইতিমধ্যে আমি বেশ কয়েকজন খেলোয়াড়কে চিনে ফেলেছি। জাতীয় দলে খেলা আল-আমিন আমাদের দলেই খেলছে। এক ধরণের সম্পর্ক এর মধ্যে হয়ে গেছে। আমি তরুণ ও অভিজ্ঞদের নিয়ে কাজ করতে চাই। সেরকম সুযোগ এলে বিষয়টি আমি ইতিবাচক হিসাবেই দেখব।’

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here