পর্তুগালে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষে প্রাণ গেল একজনের, আহত ৬

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পর্তুগাল বিএনপির সভাপতি অলিউর রহমান চৌধুরী ও পর্তুগাল আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ফরহাদ মিয়ার নেতৃত্বে উভয় দলের নেতা কর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এতে একজন নিহত হয়েছে। গত শনিবার বাংলা মার্কেট খ্যাত লিজবনের মার্টিম মনিজে স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৯টার দিকে দা-চাপাতি ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়ায় দুদল।

স্থানীয় সূত্র অনুযায়ী, সংঘর্ষে নিহত ব্যক্তির নাম সাহেদ (৩৮)। তিনি সিলেটের ফেন্সুগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগ কর্মী। সংঘর্ষে একই উপজেলার কয়েকজন গুরুতর আহত হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন।

জানা যায়, গতকাল রাত থেকে ঘটনার সাথে জড়িতদের ধরতে অভিযানে নামে পর্তুগাল পুলিশ। রাতে পর্তুগাল পুলিশ অলিউর রহমান চৌধুরী আরইশস্থ বাসভবনে তল্লাসী চালিয়ে অলিউর রহমানের দুই ছেলেকে গ্রেপ্তার করার খবর পাওয়া গেছে।

উল্লেখ্য, আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতির দেশের বাড়ি সিলেটের ওসমানি নগর উপজেলার পশ্চিম কৈলনপুর ইউনিয়নে এবং বিএনপির সভাপতি অলিউর রহমানের বাড়ি হবিগন্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা।

ইতিমধ্যে ঘটনার সাথে জড়িত উভয় পক্ষ গা ঢাকা দিয়েছে। উক্ত ঘটনায় বাঙ্গালী পাড়ায় গোয়েন্দা নজরদারী ও পুলিশী তৎপরতা বাড়ানো হয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসন ও পর্তুগীজ অধিবাসীদের মধ্যে বাঙ্গালী কমিউনিটির এই ঘটনায় বিরূপ প্রভাব সৃষ্টি করছে। যা পরবর্তীতে প্রবাসী বান্ধব পর্তুগাল বাঙ্গালী অভিবাসী প্রত্যাশীদের জন্য মারাত্মক প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হতে পারে। এই ঘটনার সংবাদ পর্তুগালের টেলিভিশন ও সংবাদ মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। এহেন ঘটনায় সাধারণ বাঙ্গালী কমিউনিটিতে আতংক বিরাজ করছে।

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here