পেটে লাথি মেরে পুলিশ বলল পাকিস্তানে চলে যাও

১৯ দিন কারাভোগের পর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন ভারতীয় অভিনেত্রী তথা সমাজকর্মী সাদাফ জাফর। মঙ্গলবার জামিনে মুক্তি পেয়ে দেশটির উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের পুলিশের বিরুদ্ধে অত্যাচারের অভিযোগ তুলেন তিনি।

এর আগে, গত ১৯ ডিসেম্বর তিনি লখনউয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) প্রতিবাদে বিক্ষোভ করতে গেলে গ্রেফতার হন সাদাফ জাফর।

জেল থেকে মুক্তি পেয়ে সে দিনের ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরলেন সাদাফ। তিনি জানান, ‘পুলিশ আমাকে গালিগালাজ করছিল। আমাকে প্রথমে একজন নারী পুলিশকর্মী চড় মারেন। তারপর মারেন এক পুরুষ অফিসার। ওই পুরুষ অফিসার নিজেকে ইন্সপেক্টর জেনারেল পদমর্যাদার অফিসার বলে দাবি করেছিলেন। তিনিই আমার পেটে লাথি মারেন এবং বলেন পাকিস্তানে চলে যাও।’
তিনি দাবি করেন, ‘হজরতগঞ্জ পুলিশ স্টেশনের জেল হেফাজতে থাকাকালীন কেউ আমার সঙ্গে দেখা করতে এলে তাকে আটকে রাখা হত। মনে হতো, আমি যেন ব্ল্যাক হোলের মধ্যে রয়েছি। জেলের মধ্যে থাকাকালীন এই ঠাণ্ডাতেও আমাকে কম্বল বা খাবার দেওয়া হয়নি।

তিনি আরও দাবি করেন, নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ দেখাতে গেলে বহু নিরপরাধ মানুষকে গ্রেফতার করে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ।

গত সপ্তাহেই জামিন পেয়েছেন সাদাফ। তার আইনজীবী হরজৌত সিংহ বলছেন, ‘সাদাফকে সহিংসতা ছড়ানোর মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তার সম্পর্কে লখনউ পুলিশ আদালতকে জানিয়েছে, ‘তার বিরুদ্ধে অগ্নিসংযোগ বা সহিংসতা ছড়ানোর কোনো প্রমাণ এখনও পর্যন্ত মেলেনি দাবি করেন আইনজীবী হরজৌত সিংহ।

ওই দিন নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ ফেসবুক লাইভে তুলে ধরছিলেন বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী সাদাফ জাফর। পরে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। সদাফ জাফরের গ্রেফতারের ঘটনায় সারা ভারতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। সূত্র:আনন্দবাজার

Loading...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here